জনদুর্ভোগ

রাস্তার উপর সাঁকো

  প্রতিনিধি ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ , ১২:০৭:২৪ প্রিন্ট সংস্করণ

দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে চলছে সংস্কার কাজ
যাতায়াতে ভোগান্তি কয়েক হাজার মানুষের
পানির স্রোতে রাস্তার এক অংশ বিলীন

রাস্তায় কার্পেটিংয়ের কাজ শেষ করার আগেই চলাচল করতে হচ্ছে বাঁশ ও সুপারি গাছ দিয়ে তৈরি সেতু দিয়ে। এমনই একটি চিত্র গতকাল চোখে পড়েছে বরিশাল সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের লামচরী গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত আগস্টের প্রথম দিকের পূর্ণিমার জোয়ার আর ফুসে উঠা সাগরের পানির স্রোতে লামছরি গ্রামের রাস্তার এক অংশ বিলীন হওয়ায় সাকো দিয়ে পার হতে হয়েছে গ্রামবাসীদের। বর্তমানে পানি না থাকলেও রাস্তার কয়েক স্থানের কার্পেটিং নেই। পানির স্রোতে পিচ, পাথর, ইটের খোয়া ও বালু ভেসে গিয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা বেল্লাল হোসেন জানান, চরবাড়িয়া ইউপির তালতলী বাজার থেকে গনি মেম্বরের হাট পর্যন্ত এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ যাতায়াত করে। গত জানুয়ারি মাসে সড়কের সাড়ে তিন কিলোমিটার অংশ কার্পেটিংয়ের কাজ শুরু হয়। এখনও কাজ শেষ হয়নি।

তিনি বলেন, এ সড়কের এক পাশে কীর্তনখোলা নদীর অপর পাশে আড়িয়াল খা নদী। গত মাসের জোয়ারে রাস্তাটি ডুবে যায়। রাস্তার লাল মিয়া আকনের বাড়ি থেকে গনি মেম্বারের হাট পর্যন্ত অংশের তিন স্থান দিয়ে পানি প্রবল স্রোত যাওয়া-আসা করেছে। এতে তিন স্থানের পিচ, পাথর, খোয়া ও বালু ভেসে গেছে। রাস্তার ওই তিন স্থানে ২০/২৫ ফুট অংশ ভেসে যাওয়ায় বর্তমানে চলাচল করতে কষ্ট হয় গ্রামবাসীর।

পারভেজ নামের আর এক বাসিন্দা বলেন, জোয়ারের পানির স্রোতে চলাচলের জন্য গনি মেম্বরের হাট সংলগ্ন এলাকায় বাসিন্দারা বাঁশ ও সুপারি গাছ দিয়ে সাকো তৈরি করে চলাচল করেছেন গ্রামবাসী। এখনও সড়কের মধ্যে সাকোটি রয়েছে।

স্থানীয় সরকারের বরিশাল সদর উপজেলা প্রকৌশলী সৈয়দ মাইনুল মাহমুদ বলেন, তালতলী বাজার থেকে গণি মেম্বারের বাজার পর্যন্ত সাড়ে তিন কিলোমিটার সড়কের সংস্কারের অভাবে কয়েক বছর আগে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছিল। প্রায় দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে সংস্কারের জন্য ‘এসএইচ এন্টারপ্রাইজ’ নামের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কার্পেটিংয়ের কাজ করছে। কাজ এখনও শেষ হয়নি। কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগে সড়কের তিনটি স্থান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। তারা পরিদর্শন করবেন বলে জানিয়েছেন।

বরিশাল উপজেলা প্রকৌশলী বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা যে সিদ্ধান্ত দেবেন। সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। রাস্তা মেরামত করে দেয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

আরও খবর

Sponsered content