অর্থ ও বানিজ্য

ঝাঁজ কমেছে কাঁচা মরিচের

  প্রতিনিধি ৮ আগস্ট ২০২২ , ১:৫০:৩১ প্রিন্ট সংস্করণ

প্রতিনিধি

ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি হওয়ায় দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের পাইকারি বাজারে দাম কমতে শুরু করেছে। প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ বন্দর অভ্যন্তরে পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা দরে।

দীর্ঘ ৯ মাস বন্ধ থাকার পর হিলি বন্দর দিয়ে শনিবার থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি শুরু হয়। গত দুই দিনে হিলি বন্দর দিয়ে ১৬টি ট্রাকে ১০৪ মেট্রিক টন কাঁচা মরিচ আমদানি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এসব কাঁচা মরিচ আমদানি করছেন হিলি শিপিং ট্রেডার্স ও সততা বাণিজ্যালয় নামের দুই ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। ভারতের বিহার রাজ্য থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি করা হচ্ছে। দুই দিনের আমদানিতেই কেজিতে কমেছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশীদ হারুন বলেন, দেশের বাজারে কাঁচা মরিচের দামের ঊর্ধ্বগতির কারণে আবারও ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। হিলি স্থলবন্দরে দুই আমদানিকারক ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান কাঁচা মরিচ আমদানি করছে। এতে হিলি বাজারে দাম কিছুটা কমতে শুরু করেছে। বতমানে প্রতি কেজি কাঁচামরিচ পাইকারি ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এখান থেকে মরিচ দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠাচ্ছে পাইকাররা। ভারতীয় কাঁচা মরিচ আমদানির কারণে বাজারে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কমে মরিচ বিক্রি হচ্ছে।

হিলি বন্দরের কাঁচা মরিচ আমদানিকারক ও পৌর মেয়র জামিল হোসেন বলেন, ভারতের বিহার রাজ্য থেকে আমদানি করা এসব কাঁচা মরিচ প্রতি মেট্রিক টনের এলসি ভ্যালু দেখানো হয়েছে ১৫০ থেকে ২০০ মার্কিন ডলার। তবে কাস্টমসে শুল্কায়ন হচ্ছে প্রতি মেট্রিক টন ৫০০ মার্কিন ডলারে। ফলে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ আমদানিতে ব্যবসায়ীদের শুল্ক গুনতে হচ্ছে ২৮ টাকা।

আমদানিকারক বাবলু বলেন, সরকারি শুল্ক কম হলে এবং এলসি ভ্যালু ডলারে কাস্টমসে শুল্কায়ন করা হলে দাম আরো কমবে। আমদানিসহ সব খরচ দিয়ে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ দেশে এনে খালাস করতে ১২০ থেকে ১২৫ টাকা খরচ পড়ছে।

Print Friendly, PDF & Email

আরও খবর

Sponsered content

Verified by MonsterInsights