২৫শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

শিরোনাম
ষাটনল ইউপি চেয়ারম্যান পদে নৌকার মাঝি হিসাবে নুরুল আজাদকে পেতে চান ইউনিয়নবাসী শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার বিতরন করেন এমপি শাহে আলম মেহেন্দিগঞ্জে মা ইলিশ রক্ষা অভিযানে জেলেদের হামলায় ইউএনওসহ আহত-৩ বরিশালে উদ্যোক্তাদের নিয়ে ঋন বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত কাল থেকে ২২ দিন ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা। অমান্যকারীকে জেল জড়িমানা পর্যটকদের নিরাপত্তায় কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত কুয়াকাটা শুভ সংঘ ক্লাবের উদ্যোগে পবিত্র কোরআন শরীফ বিতরণ সুনাম ক্ষুন্ন করতে বড়ইয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নানান ষড়যন্ত্র শুরু! চল্লিশকাহনিয়ায়  বিষখালী যুব কল্যান পরিষদ ও পাঠাগার’র উদ্বোধন

সুনাম ক্ষুন্ন করতে বড়ইয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নানান ষড়যন্ত্র শুরু!

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

 

মামুনুর রশীদ নোমানী : ঝালকাঠী জেলার রাজাপুর উপজেলার ৫ নং বড়ইয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা বড়ইয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়ার বিরুদ্ধে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ চক্রের শুরু হয়েছে নোংরা ষড়যন্ত্র।
দ্বায়িত্ব হাতে নিয়ে অত্যান্ত সুনামের সাথে পরিষদের সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। বর্তমানে করোনাকালীন সময়ের জন্য অতিরিক্ত সময় পার করছেন তিনি। বড়ইয়া ইউনিয়নকে চরম মমতায় আকড়ে রেখেছেন চেয়ারম্যান মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়া। ইউনিয়ন পরিষদকে দুর্নীতি মুক্ত ঘোষনা করেছেন। একজন মানুষকেও তিনি কখনও অনাহারে, অভুক্ত না রাখার ঘোষনা দিয়েছেন। অসহায় দুঃস্থদের তালিকা করে তাদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছেন খাদ্য সামগ্রী। জামায়াত-বিএনপি অধ্যুষিত বড়ইয়া এলাকায় নানা ঘাত প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে আওয়ামীলীগের রাজনীতির প্রদীপ জ্বালিয়ে রেখেছেন। এমন একজন মানবিক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকার বিরোধীরা উঠে পড়ে লেগেছে।আওয়ামীলীগ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষের সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ করা ও সুনাম ক্ষুন্নের জন্য বড়ইয়া ইউনিয়ন পরিষদের কতিপয় সদস্য যারা বিগত দিনের চাল চোর,ঘুষখোর এবং ইউনিয়দ পরিষদকে একটি বানিজ্যিক কেন্দ্রে রুপান্তর করেছিল তারা সরকার বিরোধী ও নাশকতায় জড়িত লোকজনদের সাথে নিয়ে জনপ্রিয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও আজগুবি তথ্য দিয়ে সম্প্রতি রাজাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট একটি দরখাস্ত দিয়েছে। যারা দরখাস্ত দিয়েছে তারা এলাকায় ঘৃনিত ও বিতর্কিত। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অসত্য ও মিথ্যা কাল্পনিক তথ্য দিয়ে দরখাস্ত করার পরে এলাকার লোকজন দরখাস্তকারীদের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে।

 

স্থানীয় লোকজন জানিয়েছে, মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়া ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যানের দ্বায়িত্ব নেয়ার পরে ৫নং বড়ইয়া ইউনিয়ন পরিষদকে দুর্নীতিমুক্ত পরিষদ ঘোষনা করেছেন। এ ঘোষনাই কাল হলো সুরু মিয়ার। তিনি দ্বায়িত্ব নেয়ার আগে যারা ছিলেন তারা প্রতিটি কর্ম করতেন ঘুষের বিনিময়ে। ভাতা, কার্ডসহ সব চলতো টাকার বিনিময়ে। এখন সব হচ্ছে টাকা ছাড়াই। তাই সুরু মিয়ার বিরুদ্ধে ঐসব বাটপার,চোর ও কার্ড বিক্রিকারীরা সুরু মিয়ার বিরুদ্ধে অপপ্রচার শুরু করেছে। স্থানীয় লোকজন ষড়যন্ত্রকারীদের কর্মকান্ডে ক্ষুব্ধ। বড়ইয়া ইউনিয়নের সাধারন মানুষ মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়ার বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের ব্যাপারে সজাগ থাকার আহবান জানিয়েছেন।

স্থানীয় লোকজন জানায় সংঘবদ্ধ একটি চোর ও সন্ত্রাসীচক্র মুলত সরকারের বিরুদ্ধে ও চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। জননন্দিত চেয়ারম্যান মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়ার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে লাভ হবেনা কারন তিনি সৎ ও সাহসি একজন মানবিক মানুষ।মানুষের কল্যানে নিবেদিত এক প্রান।

এই নোংরা ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে ফুঁসে উঠেছে বড়ইয়া ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ। ষাটোর্ধ্ব ইদ্রিস বলেন, চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কোন অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র আমরা মানবোনা। দরকার হলে এর প্রতিবাদে মানববন্ধন ও মিছিল করবো। দায়ী মেম্বরদের বিচার চাই। কপালে ভাঁজ পড়া আশি বছরের এক বৃদ্ধা অভিশাপ দিয়ে বলেন, চেয়ারম্যান আমাদের খাদ্য, কাপড়, চিকিৎসার ব্যবস্থা করে থাকে। আমার ভাঙা চালায় এসে খোঁজ নেয়। এই চেয়ারম্যান কে নিয়ে যারা মিথ্যা বলছে আল্লাহ্ তুমি তাদের বিচার এই দুনিয়ায় দেখিয়ে দিও।
এ বিষয়ে চেয়ারম্যান মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়া বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছে তা সম্পুর্ন মিথ্যা, ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। তিনি বলেন, আমি জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাবমূর্তি তৃনমুলে উজ্জ্বল করতে দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছি। তিনি বড়ইয়া ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলার জন্য পরিশ্রম করে যাচ্ছেন বলে জানান।

তিনি বলেন, আমি সরকারি নির্দেশনা মেনে মেম্বরদের নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনা করছি। উপজেলা প্রশাসন এ বিষয়ে অবগত আছে। আমি আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। কিন্তু সরকার বিরোধী একটি বিশেষ মহল আমার অর্জিত সম্মান ক্ষুন্ন করবার জন্য দীর্ঘদিন ধরে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। সেই ষড়যন্ত্রের অংশ এই কাল্পনিক দরখাস্ত।

স্থানীয় সমাজ সেবক মাসুম বিল্লাহ বলেন, চেয়ারম্যান মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়া সরকারি নিয়মে দক্ষতার সাথে ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনা করছেন। এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে দিনরাত পরিশ্রম করছেন তিনি। অথচ কতিপয় লোক ব্যাক্তি স্বার্থ হাসিল করতে না পেরে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

বিশখালি ও জাংগালিয়া নদির তীরে গড়ে উঠা রাজাপুর উপজেলার একটি ঐতিহ্যবাহী অঞ্চল বড়ইয়া ইউনিয়ন। শিক্ষা, সংস্কৃতি, ধর্মীয় অনুষ্ঠান, খেলাধুলা সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তার নিজস্ব স্বকীয়তা আজও সমুজ্জ্বল ।

১৪.৭০ বর্গ কিঃ মিঃ আয়তনের এই জনপদে ২৫,২৫২ জনের বসবাস। অনুন্নত ও অবহেলিত এ ইউনিয়নের লোকজন নদী ভাঙ্গন আর জলোচ্ছ্বাস লড়াই করে চলছে তাদের জিবনযাত্রা। সকল এলাকায় উন্নয়ন হলেও বড়ইয়া ইউনিয়ন উন্নয়নের দিকে অনেক পিছিয়ে রয়েছে। বর্তমানে
মোঃ সাহাব উদ্দিন সুরু মিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় সাধারন মানুষ দেখছেন আশার আলো। শতকরা ৪৯ ভাগ শিক্ষার হারের এই জনপদের জন্য সরকারের নিকট রাস্তাঘাট,কালভার্ট,ব্রিজ, গভীর নলকুপ স্থাপন আর অসহায় ও অস্বচ্ছলদের আরো সহায়তার জোর দাবী এলাকাবাসীর।

 

Print Friendly, PDF & Email
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরিশাল খবর ২৪.কমে প্রকাশিত-প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।