১৩ই আগস্ট, ২০২০ ইং, বৃহস্পতিবার

শিরোনাম
সংবাদ প্রকাশের পর…….. বরিশালে অর্থনীতির শিক্ষক ইংরেজির প্রধান পরীক্ষক পদ থেকে বহিস্কার বরিশাল সরকারি মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অর্থনীতির শিক্ষক বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের ইংরেজির প্রধান পরীক্ষক! মুজিব থেকে বঙ্গবন্ধু হয়ে ওঠায় রেণুর প্রেরণাঃ ‘কারাগারের রোজনামচা’য় বঙ্গমাতা আলহাজ্ব মোঃ আলাউদ্দিন স্মরনে মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত মির্জাগঞ্জে আওয়ামী লীগের অফিস ভাংচুর : গ্রেফতার ৩ শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বরিশাল সদর যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপণ চাল চুরির ঘটনায় ইউপি সদস্যসহ ২ জনের বিরুদ্ধে মামলা উজিরপুরে নিখোঁজের ৩ দিন পর ছাএের লাশ উদ্ধার বরিশালে নতুন করে ২৮ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ১

নদী ভাঙ্গনের কবলে মাদ্রাসা বারবার : বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের জন্য আবেদন

আপডেট: জুলাই ১১, ২০২০

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার : “আল-মাদ্রাসাতুল ইসলামিয়া তাজবীদুল কুরআন” নামের মাদ্রাসাটি ১৪০১ হিজরি মোতাবেক ১৯৮০ সাল থেকে দ্বীনি খেদমতের কাজ আসতেছে। কিন্তু মাদ্রাসাটি গত ২০১৭-১৮ ইং সাল থেকে তেতুলিয়া নদীর করাল গ্রাসে কবলিত হওয়ায় স্থান্তরিত করার কারণে বড়ো ধরনের অর্থনৈতিক সমস্যায় পড়ে যায়। কারণ মাদ্রাসার নামে ৮০ শতাংশ জমি ক্রয় করা হয়। যার মূল্য ১১,৫০,০০০/- (এগারো লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা)। উক্ত জমি ভরাট খরচ ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ টাকা) এবং ১৬০×২৬ ফিট একটি ঘর এবং ৪০×১২ ফিট একখানা ঘর নির্মাণ করা হয়। যার খরচ ১৩,১৫,০০০/- (তেরো লক্ষ পনেরো হাজার টাকা) এবং সাথে একখানা ৪৫×৩৪ ফিট টিনসেট মসজিদের সাথে ৪টি পাকা টয়লেট ও ৩ টি প্রসাবখানা ১টি গোসলখানা এবং একটি গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়।

অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক এবং কর্মচারীর সংখ্যা ১১জন এবং ২০০ ছাত্রছাত্রী লেখাপড়া করে আসছে। যাদের মধ্যে অনেকের খাবার ব্যবস্থা, কিতাব, চিকিৎসা, পোশাক ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিস-পত্রের ব্যয় মাদ্রাসা বহন করে। যার ফলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে ২০,৩২,৩৫৬/- (বিশ লক্ষ বত্রিশ হাজার দুইশত ছাপ্পান্ন টাকা) ঋনের বোঝা থাকা সত্বেও দিন দিন ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়া আমল আখলাক উন্নতির দিকে অগ্রসর হচ্ছে। মাদ্রাসায় নূরানী, হেফজ সহ হেতায়াতুননাহু পর্যন্ত ক্লাস চালু আসছে। কিন্তু তকদিরের লিখন মাদ্রাসাটির অঙ্গপ্রতিষ্ঠান একটি মহিলা মাদ্রসা ইতিমধ্যে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। যেখান থেকে প্রতিবছর অসংখ্য গরীব অসহায় ছাত্রী এবং বয়স্ক মহিলারা নূরানী প্রশিক্ষণ নিয়ে বিভিন্ন স্থানে নূরানী মাদ্রাসা চালু করছিলেন।

বর্তমানে নদী থেকে মাদ্রাসা থেকে নদীর দূরত্ব ২০ গজ। যার কারণে মাদ্রাসাটি পুননির্মাণের জন্য প্রায় ১৪০ শতাংশ জমি ক্রয় করা হয়। যার বর্তমান মূল্য ষোলো লক্ষ টাকা। তাই বকেয়া কর্জ পরিশোধ এবং বর্তমান জমি ক্রয় ও ভরাট সহ স্থাপনা তৈরির লক্ষ্যে, দ্বীন দরদী মুসলমান ভাই বোনদের নিকট সবিনয় অনুরোধ জানিয়েছে অত্র মাদ্রাসার পরিচালক বিন্দ এই যে, আপনারা এই অসহায় প্রতিষ্ঠানটির অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা এবং গরীব ও অসহায় মুসলমানদের সন্তানদের দ্বীনি শিক্ষা চালু রাখার নিমিত্তে আপনার এককালীন দান, যাকাত ফিতরা সহ সকল ধরনের সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে সদকা-ই জারিয়ার অফুরন্ত নেকি হাসিল করার জন্য সকলের নিকট সবিনয় অনুরোধ রইলো।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানাঃ সরাসরি মাদ্রাসার অফিস অথবা ০১৭১৬-৫২ ১৪ ৭৮ (বিকাশ পার্সোনাল), ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার : আল-আরাফা ইসলামি ব্যাংক বরিশাল শাখা, হিসাব নম্বর- ০১০১১২০৪২৬৬৪

অনুরোধে,
মাওঃ আনওয়ার হোসাইন
আল-মাদ্রাসাতুল ইসলামিয়া তাজবিদুল কুরআন
বাহেরচর, শ্রীপুর, মেহেন্দীগঞ্জ, বরিশাল – ৮২৭৪
০১৭১৬ ৫২ ১৪ ৭৮ (বিকাশ পার্সোনাল)
০১৭১৬ ৫২ ১৪ ৭৮ ৩ (রকেট পার্সোনাল)

Print Friendly, PDF & Email
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরিশাল খবর ২৪ প্রকাশিত-প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।