২৭শে মে, ২০২০ ইং, বুধবার

১৯৭১’র এই দিনে শহীদ হন মুক্তিযোদ্ধা ইউনুচ ও আবুলের

আপডেট: মে ১৮, ২০২০

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

মিলন কান্তি দাস ,নলছিটি থেকে : মুক্তিযুদ্ধের মহান নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’র মুক্তিযুদ্ধের ঘোষনা সম্বলিত ইংরেজীতে লেখা একটি টেলিগ্রাম বিশটি রাইফেল এবং দুই কাটুন গুলি সম্বল করে পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিল নলছিটির বীর সন্তানেরা।
বরিশালের এম এন এ নুরুল ইসলাম মঞ্জুর দেওয়া ওইষক্ষুদ্র সম্বল নিয়ে নলছিটির মুক্তিযোদ্ধারা পাক বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করেছিল। শক্তিশালী ও আধুনিক প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত সুসজ্জিত পাক বাহিনীর বিরুদ্ধে এ ছিল এক অসম লড়াই । এই লড়াইয়ে বাংলার দামাল সন্তানরা মাতৃভূমিকে রক্ষার দৃঢ় সংকল্প নিয়ে হায়নাদের বিরুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল । নলছিটির যোদ্ধাদের প্রথম আক্রমণ ছিল ১৯৭১ সালের ১৭ মে রাতে। তৎকালীন নলছিটি থানার নথুল্লাবাদ ইউনিয়নের (বর্তমান নথুল্লাবাদ ঝালকাঠি সদর উপজেলার অন্তর্ভুক্ত) বারৈআরা গ্রামের মোহম্মদ ইউনুচ আলী হাওলাদার এবং সহযোদ্ধা কর্ণকাঠির আবুল হোসেন, দপদপিয়ার আবদুল মান্নান হাওলাদার সহ বেশ কয়েক মুক্তিযোদ্ধা এ অসম যুদ্ধে অংশ নেন। এ যুদ্ধে রাত শেষ হওয়ার আগেই নলছিটির মুক্তিকামী অকুতোভয় মুক্তিযোদ্ধা দল পিছু হটতে বাঁধ্য হয়।
তহশীল অফিসের (জেলখানা/বর্তমান পুলিশ ফাঁড়ির)’র সামনে অনেকগুলো খেজুর গাছ ছিল। সেই খেজুর গাছের আড়ালে লুকিয়ে ছিলেন দুই বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসরাইল হোসেন এবং সংগঠক ইউনুচ হাওলাদার। হঠাৎ করে পশ্চিম দিকে অবস্থিত থানার ছাদ থেকে আসা একটি গুলি বীর যোদ্ধা ইউনুচ হাওলাদারের বক্ষ ভেদ করে দেয়। মুহূর্তে মধ্যে তার নিথর দেহটি মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। সাথে থাকা সহযোদ্ধা ইসরাইল হোসেনের সেই সময়ে নীরবে অশ্রু ঝড়ানো ছাড়া আর কিছুই করার ছিল না। সহযোদ্ধা ভাই হারানোর বেদনা তাকে হয়তো মুক্তিযুদ্ধে আরো বেশি উজ্জীবিত করেছিল। নলছিটি থানার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে প্রথম শহিদ অকুতোভয় বীর যোদ্ধা ইউনুচের লাশটা সেদিন খেজুর গাছের তলায় পরে ছিল।
এ যুদ্ধে কর্নকাঠীর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন সামান্য আহত হয়। তিনি দপদপিয়া সড়ক দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে পাক বাহিনীর ও তাদের এ দেশিয় দোসর রাজাকারদের হাতে ধরা পরেন। বীর যোদ্ধা আবুল হোসেনকে থানায় নেওয়ার জন্য গানবোটে তুলে নেয়। দপদপিয়ার কাছা কাছি গানবোট পৌছালে তাকে নির্মম ভাবে গুলি করে ঝাঝড়া করে ফেলে। সঙ্গে সঙ্গে লুটিয়ে পড়ে আমাদের এ গর্বিত সন্তান। চলে যায় না ফেরার দেশে। নলছিটির মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে দ্বিতীয় শহীদের তালিকায় যুক্ত হয় বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেনের।
আজকের এই দিনে গভীর শ্রদ্ধা আর ভালবাসায় স্মরণ করছি নলছিটির এই দুই অকুতোভয় বীর সন্তানকে।

মিলন কান্তি দাস
নলছিটি,ঝালকাঠি।

Print Friendly, PDF & Email
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরিশাল খবর ২৪ প্রকাশিত-প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।