২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, শনিবার

বেতাগীতে কাজিরাবাদ ইসলামিয়া দাখিল মাদারাসার পরিচালনা কমিটি গঠনে জটিলতা

আপডেট: জানুয়ারি ২৭, ২০২০

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বেতাগী (বরগুনা) প্রতিনিধি :

বেতাগীতে কাজিরাবাদ ইসলামিয়া দাখিল মাদারাসার পরিচালনা কমিটি গঠন নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। সভাপতি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠান না করতে পারায় সংশ্লিষ্টরা কমিটির সভাপতির নাম মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে পাঠাতে পারেনি। ফলে ওই মাদারাসায় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা রয়েছে বিপাকে। মাদরাসা সঠিকভাবে পরিচালনা ও উন্নয়ন কর্মকান্ড ব্যাহত হচ্ছে।

জানা গেছে, দুই বছর মেয়াদের উপজেলার ওই প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটি গঠন উপলক্ষে দাখিল ও ইবতেদায়ী শাখায় অভিভাবক সদস্য ৪ জন, একই শাখায় শিক্ষক প্রতিনিধি ২ ও দাতা সদস্য পদে ১ জন করে সদস্য নির্বাচিত করতে গত ৭ জানুয়ারি ছিল মনোনয়ন পত্র গ্রহন ও জমাদান, ১১ জানুয়ারি মনোনয়ন পত্র বাছাই, ১২ জানুয়ারি মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার ও ২২ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠানের তফসীল দেওয়া হয়।

১২ জানুয়ারি মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে প্রার্থীরা মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে নেওয়ায় ৭ জন সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে ২৩ জানুয়ারি সকাল সাড়ে ৯ টায় প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটির নির্বাচনের তারিখ ঘোষনা করা হয়। এতে সভাপতি পদে বিদায়ী সভাপতি কাজিরাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি চান্দখালী মোশারেফ হোসেন ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মো: জাহাঙ্গীর আলম দুলাল ও কাজিরাদের ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো: বেল্লাল হোসেন প্রার্থী হন।

কিন্ত ওই দিন সভাপতি পদে ভোট অনুষ্ঠানের জন্য সময় নির্ধারন করা হলেও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্বাচিত ৭ ভোটারের কেউই ভোট দিতে আসেনি। তাই সভাপতি পদে নির্বাচিত করা সম্ভব না হওয়ায় নির্বাচন বন্ধ করে দেওয়া হয়।

সভাপতি প্রার্থী মো: বেল্লাল হোসেন অভিযোগ করেন, ‘তার প্রতিপক্ষ পঞ্চমবারের মত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসার পরেও তিনি পুন:রায় স্বপদে বহাল হওয়ার জন্য আমার ও ভোটারদের উপর অবৈধ প্রভাব বিস্তার করে নির্বাচন বানচালের পায়তারা করে। সংশ্লিদের কাছে গিয়ে প্রতিকার না পাওয়ায় ভয়ে আমাকে এলাকার বাইরে অবস্থান করতে হয়।

এ বিষয় প্রতিষ্ঠানের সুপার মো: মনিরুজ্জামান বলেন,‘ ভোটররা আমার আওতায় নয়। তারা কেন উপস্থিত হয়নি তা আমি বলতে পারিনা।’ প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ অস্বীকার করে সভাপতি প্রার্থী প্রভাষক মো: জাহাঙ্গীর আলম দুলাল বলেন,‘ ভোটাররা সভাপতি নির্বাচনে কাকে ভোট দিবেন এথরনের দ্বিধা-দ্বন্ধে ছিল তাই কেউ ভোট দিতে আসেনি।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয়ের একাডেমিক সুপার ভাইজার ও নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার এসএম মাসুদুর রহমান জানান,‘ নির্বাচনী তফসীল অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোন ভোটার ভোট দিতে না আসায় নির্বাচন বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবে এ কারনে কমিটি গঠনের স্বাভাবিক প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়েছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শহীদুর রহমান জানায়,‘ বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ও মাদারাসা পর্যায়ের পরিচালনা কমিটির নিয়ম ২৬ জানুয়ারি ছিল নয়া সভাপতির নাম ঢাকা মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের নিকট পাঠানোর শেষ সময় সীমা ছিল। নতুন কমিটি নির্ধারিত সময়ানুসারে না পাঠাতে পারায় নিয়মানুযায়ী নতুন করে ৬ মাসের জন্য এডহক কমিটি গঠন করতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরিশাল খবর ২৪ প্রকাশিত-প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।