,
প্রচ্ছদ | বরিশাল | অনলাইন সংবাদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | রাজনীতি | খেলাধুলা | সাহিত্য | এক্সক্লুসিভ | ফ্রেন্ডস ফর লাইফ সংবাদ | সিটিজেন জার্নালিস্ট সংবাদ | সম্পাদকীয় |

এসএসসিতে বরিশাল বোর্ডে পাসের হার ৭৭ দশমিক ১১

মামুনুর রশীদ নোমানী : এসএসসিতে বরিশাল বোর্ডে পাসের হার ৭৭ দশমিক ১১ শতাংশ। এরমধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে তিন হাজার ৪৬২ জন শিক্ষার্থী।রোববার (৬ মে) বেলা ১১টা ১৫ মিনিটে ফলাফলের পরিসংখ্যান ঘোষণা করেন বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মো. আনোয়ারুল আজিম।তিনি জানান, এ বছর পরীক্ষায় বরিশাল বোর্ড থেকে অংশ নেয় এক লাখ হাজার ৩৯১১ জন। এরমধ্যে ছাত্র ৫১ হাজার ৯১২ জন এবং ছাত্রী ৫১ হাজার ২১২ জন। পাস করেছে ৭৯ হাজার ৫২০ জন, যারমধ্যে ছাত্র ৩৯ হাজার ৫১ জন এবং ছাত্রী ৪০ হাজার ৪৬৯ জন। বিভাগে পাসের হারে এগিয়ে রয়েছে ভোলা জেলা।প্রতিবারের মতো এবারও এ শিক্ষা বোর্ডে ফলাফলে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা পাস ও জিপিএর হারে এগিয়ে। গত বছর বরিশাল বোর্ডে পাসের হার ছিল ৭৭ দশমিক ২৪ শতাংশ। গত বছরের চেয়ে এবার পাশের হার কমেছে দশমিক ১৩ শতাংশ। তবে জিপিএ-৫ বেড়েছে এক হাজার ১৭৪ জনের।

বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে
কমেছে পাসের হার
বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীনে বছর বছর কমছে পাসের হার। ২০১৫ সাল থেকে এ বোর্ডে পাসের হার ক্রমান্বয়ে কমছে। এবার বরিশাল বোর্ডে মোট পাসের হার গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৭৭ দশমিক ১১ শতাংশে, যা গত বছর ছিলো ৭৭ দশমিক ২৪ শতাংশে।বোর্ডের বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত ফলাফলের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৪ সালে পাসের হার ছিলো ৯০ দশমিক ৬৬ শতাংশ, এরপর ২০১৫ সালে ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ৮৪ দশমিক ৩৭ শতাংশে।আর ২০১৫ সালের চেয়ে ৪ দশমিক ৯৬ শতাংশ কমে ২০১৬ সালে দাঁড়ায় ৭৯ দশমিক ৪১ ভাগে। ২০১৭ সালে পাসের হার ছিলো ৭৭ দশমিক ২৪ শতাংশ। সর্বশেষ ২০১৭ সালের থেকে দশমিক ১৩ শতাংশ কমে ২০১৮ সালে দাঁড়িয়েছে ৭৭ দশমিক ১১ শতাংশে।এবছর জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ৪৬২ জন শিক্ষার্থী। গত বছরের তুলনায় এ বছর ১ হাজার ১৭৪ জন বেশি জিপিএ-৫ পেয়েছে।তবে ২০১৪ সালে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা ছিলো ৪ হাজার ৭৬২, সেখানে পরের বছর ২০১৫ সালে ১ হাজার ৫৯১ কমে জিপিএ-৫ দাঁড়ায় ৩ হাজার ১শ’ ৭১-এ। এরপর ২০১৬ সালে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা ৩ হাজার ১১৩। আর ২০১৭ সালে এসে আরও ৮২৫ কমে গিয়ে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা দাঁড়ায় ২ হাজার ২৮৮ জনে। এ বছর সর্বোচ্চ জিপিএ-৫ পেয়েছে বিজ্ঞান বিভাগে ৩ হাজার ২২৪ জন, আর মানবিক বিভাগে ১০৬ জন ও বাণিজ্য বিভাগে পেয়েছে ১২৮ জন।তবে বিগত সময়ের চেয়ে এ বছর এসএসসিতে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো বেশি। এবছর পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলো ১ লাখ ৩ হাজার ১২৪ জন। যার মধ্যে ছাত্র ৫১ হাজার ৯১২ জন এবং ছাত্রী ছিলো ৫১ হাজার ২১২ জন।অপরদিকে গত বছর ৯ হাজার ৪৪৮ জন পরীক্ষার্থী কম অংশ নেয়। যার মধ্যে ছাত্র ৪৭ হাজার ৩৬১ জন এবং ছাত্রী ছিলো ৪৬ হাজার ৩১৫ জন। এদের মধ্যে পাস করেছিলো ৭২ হাজার ৩৫৬ জন। এছাড়া এ বছর গত বছরের চেয়ে বহিষ্কৃত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো বেশি। এবছর ১০৩ জন পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে, যা গত বছর ছিলো ৩৯ জন।এ বছর মোট পরীক্ষার্থীর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগে ২৭ হাজার ৪১ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ২৪ হাজার ২৫৫ জন। মানবিক বিভাগে ৪৭ হাজার ৩৭৪ পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাস করেছে ৩২ হাজার ৫৪১ জন। বাণিজ্য বিভাগে ২৮ হাজার ৭০৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাস করেছে ২২ হাজার ৭২৪ জন।
এ বিষয়ে বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মো. আনোয়ারুল আজিম জানান, এ বছর গণিতে ও ইংরেজিতে পরীক্ষার্থীরা তুলনামূলক খারাপ করেছে। তবে পাসের হার কমলেও প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনার কোনো প্রভাব পড়েনি। কারণ পাসের সংখ্যা কমলেও ফলাফলে গুণগতমান ভালো হওয়ার বিষয়টি দেখা গেছে। এ বছর বিগত বছরের থেকে জিপিএ-৫ এর সংখ্যা বেড়েছে অনেকটাই। শিক্ষকের অপ্রতুলতা ও উত্তরপত্র মূল্যায়নে পরিবর্তনের কারণে ফলাফলে কিছুটা পরিবর্তন ঘটতে পারে বলে জানান তিনি।

এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল বিপর্যয়ে
জগদীশ সারস্বত বালিকা বিদ্যালয়ের
প্রধান শিক্ষকে অবরুদ্ধ

বরিশাল নগরীর জগদীশ সারস্বত বালিকা বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল বিপর্যয়ের কারণে প্রধান শিক্ষক শাহ আলমকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা।ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পর রোববার দুপুর ২টার দিকে পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকরা ফলাফল বিপর্যয়ের কারণে জগদীশ সারস্বত বালিকা বিদ্যালয়ে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করে।
এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহ আলম অভিভাবকদের রোষানল থেকে বাঁচতে দোতলার একটি কক্ষে আশ্রয় নেন। অভিভাবকরা বিদ্যালয়ের সেই কক্ষটি ঘিরে রেখেছেন। ফলে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন প্রধান শিক্ষক শাহ আলম।
খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিভাবকদের শান্ত করার চেষ্টা করছেন।নগরীর জগদীশ সারস্বত বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল মজিদ জানান, গত বছর এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১৮ শিক্ষার্থী। এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র চারজন শিক্ষার্থী। এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় ১৯৪ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। ফেল করেছে ৩৬। গত এক যুগেও এত খারাপ ফল হয়নি। এসব কারণে পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকরা স্কুলে এসে ফলাফল বিপর্যয়ের কারণে ক্ষোভে ফেটে পড়েন। সেইসঙ্গে প্রধান শিক্ষককে অবরুদ্ধ করেন।সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল মজিদ জানান, গত ৬ মাস আগে শাহ আলম প্রধান শিক্ষক হিসেবে এ বিদ্যালয়ে যোগ দেন। অভিভাকরা মনে করছেন প্রধান শিক্ষকের অদূরদর্শিতা, শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় উদাসীনতা ও অব্যবস্থাপনার কারণে ফলাফল বিপর্যয় হয়েছে।বরিশাল কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশের (ওসি) মো. আওলাদ হোসেন জানান, অভিভাকদের বিক্ষোভের খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ সদস্য পাঠানো হয়েছে।

বরিশাল বোর্ডে ৩ স্কুলের কেউ পাস করেনি
বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৫০টি স্কুলে শতভাগ পাস করলেও তিনটি স্কুলের কোনো শিক্ষার্থীই পাস করতে পারেনি।
স্কুল তিনটি হলো- ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার ইসলামপুর সেকেন্ডারি স্কুল, ভেরন বাড়িয়া সিএসইউ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং পটুয়াখালীর উত্তর মৌকরণ এএইচ সেকেন্ডারি বিদ্যালয়।এই তিন প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার ইসলামপুর সেকেন্ডারি স্কুলের ১৭ জন, ভেরন বাড়িয়া সিএসইউ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫ জন এবং পটুয়াখালী সদরের উত্তর মৌকরণ এএইচ সেকেন্ডারি বিদ্যালয়ের ৭ জন পরীক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।রোববার (৬ মে) বরিশাল বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মো, আনোয়ারুল আজিম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।তিনি বলেন, ৩টি বিদ্যালয়ে যেমন কেউ পাস করেনি, তেমনি বোর্ডের আওতাধীন ৫০টি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শতভাগ পাস করেছে। যারমধ্যে বরিশাল জেলায় সর্বোচ্চ ১৬টি, এরপর বরগুনায় ১১টি, ভোলায় ১০টি, পটুয়াখালীতে ৬টি, পিরোজপুরে ৪টি ও ঝালকাঠিতে ৩টি বিদ্যালয় রয়েছে।

বরিশাল ক্যাডেটের ৪৬ শিক্ষার্থীর সবাই জিপিএ-৫
প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা (এসএসসি) পরীক্ষায় বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে শীর্ষস্থান অধিকার করেছে বরিশাল ক্যাডেট কলেজ।এ বছর ৪৬ জন ক্যাডেট এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ৪৬ জন ক্যাডেটই জিপিএ ৫ অর্জন করেছে। যা শতকরা হিসেবে শতভাগ। রোববার (৬ মে) বরিশাল ক্যাডেট কলেজের অধ্যাক্ষ মো. আতিকুর রহমান বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।এ অসাধারণ ফলাফলের জন্য শিক্ষকমন্ডলী, ক্যাডেট, অভিভাবক ও অন্যান্য সবাইকে অভিনন্দন জানিয়ে ভালো ফলাফলের এ ধারা অব্যাহত রাখার জন্য আরও যতœবান হওয়ার আহবান জানান অধ্যাক্ষ আতিকুর রহমান ।

বরিশাল বোর্ডে সেরা ভোলা
মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার ফলাফলে বরিশাল বোর্ডে পাসের হারে এগিয়ে ভোলা জেলা। এ জেলার পাসের হার ৮৩ দশমিক ০২ শতাংশ। তবে গত বছর পাসের হারে ভোলা জেলা ছিল সবার তলানিতে।রোববার (৬ মে) দুপুরে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল শেষে এ তথ্য জানা যায়।এবছর ভোলা জেলায় ১৯৩টি স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে পরীক্ষায় মোট অংশগ্রহণ করে ১৫ হাজার ৬১৭ জন শিক্ষার্থী। এরমধ্যে ছেলে ৮ হাজার ৬০৪ জন ও মেয়ে ৭ হাজার ১৩ জন। পাস করেছে ১২ হাজার ৯৬৫ জন। যারমধ্যে ছেলে ৭ হাজার ৩৭ ও মেয়ে ৫ হাজার ৯২৮ জন।দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বরগুনা জেলা। এ জেলার পাসের হার ৮১ দশমিক ৭০ শতাংশ। ১১ হাজার ২৩৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করছে ৯ হাজার ১৮২ জন। এদের মধ্যে ছেলে ৪ হাজার ৬১৩ জন ও মেয়ে ৪ হাজার ৫৬৯ জন। এদিকে, গত বছরের মতো এবারও তৃতীয় স্থানে রয়েছে পিরোজপুর জেলা। এ জেলার পাসের হার ৮০ দশমিক ৭২ শতাংশ। ১২ হাজার ৭০০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করছে ১০ হাজার ২৫২ জন। এদের মধ্যে ছেলে ৪ হাজার ৬২২ জন ও মেয়ে ৫ হাজার ৬৩০ জন।

চতুর্থ স্থানে রয়েছে বরিশাল জেলা। এ জেলার পাসের হার ৭৬ দশমিক ৯৫ শতাংশ। ৩৫ হাজার ২৪১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করছে ২৭ হাজার ১১৭ জন। এদের মধ্যে ছেলে ১২ হাজার ৮৭৭ জন ও মেয়ে ১৪ হাজার ২৪০ জন। পঞ্চম স্থানে রয়েছে পটুয়াখালী জেলা। এ জেলার পাসের হার ৭৬ দশমকি ৬২ শতাংশ। ১৯ হাজার ১৫৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করছে ১৪ হাজার ২৯৩ জন। এদের মধ্যে ছেলে ৭ হাজার ৪১৭ জন ও মেয়ে ৬ হাজার ৮৭৬ জন। গতবছর শীর্ষ স্থানে থাকা ঝালকাঠি জেলায় এবার ৬২ দশমিক ২৫ শতাংশ পাসের হারে বরিশাল বোর্ডের সবার শেষ ।

বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে বেড়েছে জিপিএ-৫
বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে এবার মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ বেড়েছে। এবছর জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ৪৬২ জন। যা গতবারের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে। গতবার এ বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ২ হাজার ২২৪ জন। এবার বরিশাল বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৬৬১ জন ছেলে এবং ১ হাজার ৮০১ জন মেয়ে।
রোববার (৬ মে) বেলা সাড়ে ১২টায় বরিশাল শিক্ষা বোর্ড সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।তিন বিভাগের মধ্যে বিজ্ঞানে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ২২৪ শিক্ষার্থী। মানবিক বিভাগে ১০৬ ও বানিজ্য বিভাগে পেয়েছে ১২৮ শিক্ষার্থী।এবার বরিশাল শিক্ষাবোর্ডে মোট পাশের হার গিয়ে দাড়িয়েছে ৭৭ দশমিক ১১ শতাংশ, যা গত বছর ছিল ৭৭ দশমিক ২৪ শতাংশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রচ্ছদ | বরিশাল | অনলাইন সংবাদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | রাজনীতি | খেলাধুলা | সাহিত্য | এক্সক্লুসিভ | ফ্রেন্ডস ফর লাইফ সংবাদ | সিটিজেন জার্নালিস্ট সংবাদ | সম্পাদকীয় |

উপদেষ্টা মন্ডলী

প্রধান উপদেষ্টা : শাহ্ সাজেদা ।
উপদেষ্টা সম্পাদক : সৈয়দ এহছান আলী রনি ।
সহকারী সম্পাদক: খন্দকার মুন্না ।
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: এফ.এম. আসাদুজ্জামান (আসলাম) ।
বার্তা সম্পাদক : মোঃ নাজমুল হক ।
সম্পাদক ও প্রকাশক: মামুনুর রশীদ নোমানী ।

যোগাযোগ

সকল প্রকার যোগাযোগ: লুকাস কম্পাউন্ড,সদর রোড,বরিশাল ।

ইমেইল: nomanibsl@gmail.com

মোবাইল : 01839970603

ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপিংঃ ইঞ্জিনিয়ার বিডি নেটওয়ার্ক

Design & Developed BY EngineerBD