১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, সোমবার

শিরোনাম
গলাচিপা উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিনের বিরুদ্ধে নারী আইনজীবীকে পোটানো অভিযোগে শ্লীলতাহানী মামলা বাউফলে হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতার ও ন্যায় বিচার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন গলাচিপায় দুর্বৃত্তদের দেয়া আগুনে দুটি দোকান পুড়ে ছাই, ২৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি গলাচিপায় আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল উপজেলা চেয়ারম্যান কর্তৃক নির্যাতিত নারী আইনজীবীর পটুয়াখালী প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন কলাপাড়ায় কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতার সংবাদ সম্মেলন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে অভিনন্দন জানিয়েছে পটুয়াখালীতে সভাপতি প্রার্থী হৃদয় আশিষ মিথ্যা সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার প্রতিবাদে গলাচিপায় উপজেলা চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন গলাচিপা ও রাঙ্গাবালীতে নেই কোনো আবহাওয়া অফিস

গলাচিপায় শাকিল মৃধার পরিবার পথে পথে ঘুরছে

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

গলাচিপা, পটুয়াখালী প্রতিনিধি:
পটুয়াখালীর গলাচিপায় শাকিল মৃধার (৩৭) পরিবার অর্থের অভাবে দিশেহারা হয়ে পড়েছে। শাকিল মৃধা হচ্ছেন পৌরসভার ১নম্বর ওয়ার্ডের আঃ আজিজ মৃধার ছেলে। শাকিল মৃধা প্রতিবেদকে বলেন, শুনামের সহিত গলাচিপা সদর রোর্ডের শাকিল ট্রেইলাস্ নামে দুটি দোকান ১নম্বর ওয়ার্ডের গোডাউন রোডের একটি পাকা নির্মান বাড়ি। শাকিল মৃধা প্রায় ৩০ বৎসর পর্যন্ত সুনামের সহিত দোকান করে আসছে। এলাকার কিছু লোক শাকিলের সাথে টাকার লেনদেন করে। শাকিল অনেকের পাওনা আসল টাকা দিলেও চক্রহারে সুদে শাকিল আটকে পড়ে। পড়ে শাকিল কোন উপায় না পেয়ে গলাচিপা নির্বাহী ম্যাজিস্টেট আদালতে গত ৪/৪/২০১৯ তারিখে ১৯ জনকে বিবাদি করে একটি মামলা করে। শাকিলের মা সামসুন নাহার বেগম (৬৫) আরও বলেন, আমার ছেলে ট্রেইলারী কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে। আমার ছেলেকে গলাচিপার কিছু লোক টাকার লেনদেন করে বছরের পর গুরিয়ে এখন দোকান করতে দিচ্ছে না এমনিক দোকানে তালা দেয়। পরে আমার বাসস্থান থেকে আমাকে তাড়িয়ে দিয়ে বাসায় তালাবদ্ধ করে রাখে। আমি এখন পথে পথে ঘুড়ে বেড়াচ্ছি। শাকিলে স্ত্রী উম্মে কুলসুম সাথি বলেন, আমি দু সন্তানের জননী আমার স্বামী মানুষের কাছ থেকে কিছু টাকার লেনদেন করে বিপাকে করে। মানুষ আমার স্বামীকে মারধর করার হুমকি দিলে আমার স্বামী পালিয়ে যায়। পরে আমার স্বামী দোকানে পাওনা দারেরা তালাবদ্ধ করে রাখে। আমার বসত ঘরেও আমাদেরকে বসতঘর থেকে তাড়িয়ে তালাবদ্ধ করে রাখে। তিনি কান্না কন্ঠে আরও বলেন, প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করছি এই যে, আমার স্বামীকে পুনরায় দোকানে বসিয়ে পাওনাদারদের কাটা বুঝিয়ে দিয়ে আমার সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে যাতে আমরা পূনরায় শান্তিতে বসবাস করতে পারি তার প্রর্থনা জানাচ্ছি আপনাদের মাধ্যমে। এ বিষয়ে গলাচিপা পৌর সভায় প্যানেল মেয়র আনজুমান করুনা বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি আসলেই দুঃখজনক।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network